নিক-প্রিয়াঙ্কার বিয়ে ভাঙনের মুখে!

264

মিডিয়ামেইল : বিবাহিত জীবনে অনেক কিছুই ঠিকঠাক নেই নিক-প্রিয়াঙ্কার মধ্যে। ওঁরা ঝগড়া করছেন প্রায় সবকিছু নিয়েই। নিজেদের ওয়ার্ক শিডিউল, পার্টি অ্যাটেন করা, একসঙ্গে সময় কাটানোর মতো সময় বার না করতে পারা- এমন সবকিছু নিয়েই তুমুল অশান্তির কালোঝড় এখন নিক-প্রিয়াঙ্কার ৪১২৯ বর্গফুটের ৪৫ কোটিরও বেশি দামের বেভারলি হিলসের বাংলোয়।

‘বিয়ের সিদ্ধান্তে বড্ড তাড়াতাড়ি পৌঁছেছিল ওঁরা, এখন তার মাশুল গুনতে হচ্ছে’- জানাচ্ছে নিউ ইয়র্কের বিশেষ সূত্র। সেই সূত্র থেকে আরও জানা যাচ্ছে, প্রথম দিকে নিক ভেবেছিলেন, প্রিয়াঙ্কা সবেতে মানিয়ে নিতে পারা ইজিগোয়িং মেয়ে।

কিন্তু বিয়ের চার মাস যেতেই নিক বুঝতে পারছেন প্রিয়াঙ্কা তাঁকে সব কিছুতেই নিয়ন্ত্রণ করতে চাইছেন। তাছাড়া প্রিয়াঙ্কা মাঝেমাঝেই মেজাজও হারান। বিয়ের অনুষ্ঠান মিটে যাওয়া পর্যন্ত প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে নিকের ধারণা ছিল প্রিয়াঙ্কা সবেতেই স্বচ্ছন্দ। কিন্তু ধীরে ধীরে তিনি প্রিয়াঙ্কার এইসব বৈশিষ্ট্য চিনতে পারেন।

ফলে এখন অবস্থা যা দাঁড়িয়েছে, তাতে নিকের পরিবার নিককে বলছে, ‘যত তাড়াতাড়ি পারো ডিভোর্সটা সেরে ফেলার চেষ্টা করো’। নিকের মতো নিকের পরিবারের অন্য সদস্যরাও ভেবে নিয়েছিলেন, প্রিয়াঙ্কা যথেষ্ট পরিণত আর তিনি এই মুহূর্তে বাচ্চার মা হয়ে ‘সেটলড’ হতে চায়।

কিন্তু যত দিন গিয়েছে নিকের পরিবারের সদস্যরা বুঝতে পেরেছেন, প্রিয়াঙ্কা আসলে পার্টিগার্ল। যার হাবভাব ২১ বছরের মেয়েদের মতো। নিকের পরিবারের বেশিরভাগ সদস্যরাই মনে করছেন, বিয়ের আগে ওঁদের দু’জনেরই একটা প্রারম্ভিক চুক্তি করে নেওয়া উচিত ছিল। তা না করে ওঁরা মারাত্মক ভুল করেছেন। কোনও কোনও সূত্র থেকে ওঁদের মধ্যে টাকাপয়সা আর সম্পত্তি নিয়ে ঝগড়া বাধার খবরও উঠে আসছে।

মাত্র চার মাস আগে ২০১৮-র ১ ডিসেম্বর যোধপুরের উমেদ ভবনে রাজকীয়ভাবে বিয়ে করেছিলেন নিক আর প্রিয়াঙ্কা।